1. mdrahim191420@gmail.com : Tazu Miazi : Tazu Miazi
  2. admin@www.bangladeshbartabd.com : Bangladeshbarta :
রুপালি পর্দার মানুষেরা কেমন আছে? - Bangladesh Barta
মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৬:১৫ অপরাহ্ন

রুপালি পর্দার মানুষেরা কেমন আছে?

মোঃ আবু সাঈদ
  • প্রকাশিত: শনিবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ৯২ বার পড়া হয়েছে

বাংলাদেশের সংস্কৃতি বলতে গণমানুষের সাহিত্য,সংগীত, নৃত্য,পোষাক,উৎসব ইত্যাদির মিথস্ক্রিয়াকে বোঝানো হয়ে থাকে। বাংলাদেশের সংস্কৃতি স্বকীয় বৈশিষ্ট্যের কারণে স্বমহিমায় উজ্জ্বল। বাংলাদেশ পৃথিবীর সমৃদ্ধ সংস্কৃতির ধারণকারী দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম।বাংলাদেশের মানুষ শিল্প-সাহিত্যকে ধারণ করে জীবন যাপন করেন। জীবন যাপন করতে মানুষ অনেক স্বপ্ন দেখে,আর স্বপ্ন নিয়ে মানুষ বেঁচে থাকে। যে মানুষ স্বপ্ন দেখে না সেই মানুষের জীবন স্বাভাবিক নয় এবং শপ্নবাজ হতে পারে না, জীবনের উপভোগ পরিপূর্ণ হয় না,প্রশ্ন হতে পারে স্বপ্ন মানুষ কিভাবে দেখে? স্বপ্ন কেউ ঘুমিয়ে দেখে আবার জাগ্রত হয়ে অনুভূতি কল্পনায় অনুভব করে, কিন্তু এই কল্পনার জগৎ টা কোথা থেকে আসে ? মানুষ অনুকরণ প্রিয়, পৃথিবীতে যা মঙ্গল ও কল্যানকর মানুষ সেটা অনুকরণ করে। মানুষের জীবনে ওতপ্রোতভাবে জড়িত হাসি, কান্না ও বিনোদন। বিনোদন খুজতে মানুষ নানা দিক খুঁজতে থাকে অার সহজে বিনোদন খুঁজে পাওয়া যায় অামাদের শিল্প সংস্কৃতিতে। যা নৃত্য, গান, চলচ্চিত্র, নাটক থেকে অামরা বিনোদন অনেকটাই খুঁজে পাওয়া যায়। এতসব লেখার কারন, অামি যখন ভাল লাগার অনুভূতি বুজতে পারছিলাম অামার নিজের জীবনের স্বাদ উপভোগ করতে চাচ্ছিলাম তখন থেকে অামার শপ্ন দেখা দিলো অার শপ্ন দেখা শুরু করলাম, এ শপ্ন দেখানো পথ খুজে দিলো চলচ্চিত্রের অভিনেতা বা নায়কেরা। অাসলে চলচ্চিত্র বা নাটক বাস্তব এবং কল্পনার মিশ্রনে গল্প হয়ে থাকে। অনুকরণ করতে শিখলাম কিভাবে একটা নায়ক তার জীবন গল্পে রঙে সজ্জিত হয়। অনুকরণ করতাম একজন নায়কের কথা বলার স্টাইল, পোষাক ও চালচলন। বন্ধু মহলে অনেক প্রশংসিত হতাম নিজেকে গর্ববোধ করতাম যখন কোন নায়কের সাথে তুলনা করা হত। শপ্ন দেখার শুরুটা হয়ত তখন থেকে হয়েছিল। যে ব্যক্তি শপ্ন দেখে জীবনকে শপ্নীল রঙে গাঁ ভাসিয়ে বাস্তব নিয়ে শপ্ন দেখেছে সে হয়ত জীবনে সফলতা এনেছে।এই সফলতার গল্পের মুলে থাকে একজন নায়ক বা অভিনেতা।পর্দায় যারা অভিনয়ের মাধ্যমে শপ্ন দেখান কিভাবে একজন ব্যক্তি উচ্চ শিক্ষিত বা শিল্পপতি হয়ে যায় নাটকের গল্পে৷ অাসলে বাস্তব জীবনটা অভিনেতাদের কেমন? এমন মনে প্রশ্ন আসতে পারে।
অাগে বলেছি ছোট বেলা থেকে নাটক চলচ্চিত্র ভালবাসতাম অার সেই কারনে মিডিয়ার জগতে পা রেখেছিলাম, এক বন্ধুর অনুপ্রেরণায় একটি গল্পের উপর নাটক নির্মান করেছিলাম। গল্পটি ছিলো এমন এক বেকার যুবক কিভাবে সমাজের এক শিল্পপতির সহযোগিতায় জীবন বদলিয়ে ছিলো,কিভাবে বেকারত্ব দূর করে পরিবারের উপার্জান ব্যক্তিতে পরিনত হলো। নাটকটি নির্মাণের পর অনেক প্রশংসিত হয়েছিলাম এবং সেই সময় নাটকটি বানাতে অনেক অানন্দ ও রোমাঞ্চকর ঘটনা ঘটেছিলো যা ভাবলে অামাকে শপ্নে অন্য জগতে নিয়ে যায়, এইটা অামার জীবনের এক অন্যরকম ভাললাগা!
এইত সেদিন কোন এক সংবাদ সংগ্রহের জন্য প্রেসক্লাবে গিয়েছিলাম, শীতের সকাল শরীরটা যখন ঠান্ডায় হীম হয়ে অাসছিলো মনটা তখন চাচ্ছিলো এক কাপ চা চুমুকে শরীর ও মনকে সতেজ করতে বসে পড়লাম চায়ের দোকানের নড়বড়ে চেয়ারে,চায়ের অর্ডার দিয়ে হালকা রোদে মোবাইলে কিছু একটা মাথা নিচু করে দেখছিলাম হঠাৎ কানে ভেসে অাসলো একটা কন্ঠ স্বর “অামাকে একটু সাহাষ্য করবেন” কন্ঠটা খুব পরিচিত মনে হলো।মাথা নিঁচু অবস্থায় মোবাইলের স্কীনে চোখ, কণ্ঠ শুনে উপরের দিকে তাকাতে মন চাচ্ছিলো না, কারন যে কন্ঠটি বেতারে বহুবার কোন শিল্পপতি, কখনো একজন শিক্ষকের বা কখনো বড় কোন সরকারি কর্মকর্তার ভুমিকায় শুনতাম বা টিভির পর্দায় দেখতাম। সেই ব্যক্তি কি করে ফুটপাতে সাহাষ্যের জন্য হাত পাতবে? যে কিনা অামার নাটকে একজন শিল্পপতি হয়ে একজন বেকার যুবকের অর্থ উপার্জনের সন্ধান দিয়েছিলো সে কেন অন্যর কাছে সাহাষ্যের প্রার্থনা করবে? অামি মাথা উঁচু করে তার দিকে তাকাতে পারিনি, হয়ত তিনি অামাকে প্রথম অবস্থায় চিনতে পারিনি পরে যখন চিনতে পেরেছিলেন তখন এক অদ্ভুত অভিনয় করে চলে গেলেন,যে অভিনয় অামাকে বিনোদন নয় বরং ভাবনায় ফেলেছে যাদের শৈল্পিক অভিনয় দেখে অনেকে শপ্ন দেখে, হয়ত অনেকে অনুকরণ করার চেষ্টা করে যারা অামাদের বিনোদন ও অানন্দ দেয় রুপালি পর্দায়। বাস্তব জীবনে হয়ত কোন ভুলের কারনে কতটা অসহায় হয়ে অন্যের কাছে হাত পাততে হচ্ছে। যারা রুপালি পর্দায় কখনো বিলাসবহুল বাড়ি ও গাড়িতে চলেছে বাস্তব জীবনে কতটা অসহায় হয়ে জীবন যাপন করছে কেহ কি তার খোঁজ নিচ্ছে?

সংবাদটি শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন,

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত  দৈনিক বাংলাদেশ বার্তা  ২০২০-২১
এই ওয়েবসাইটের লেখা, ছবি, ভিডিও ব্যবহার বেআইনি

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট